সমাজ বিজ্ঞানের জনক কে? অগাস্ট কোঁৎ (Auguste Comte)

সমাজ বিজ্ঞানের জনক কে? Who is the father of social science?

✌✌Who is the father of social science? প্রিয় পাঠক বন্ধুরা চলুন জেনে নি সমাজ বিজ্ঞানের জনক কে? আজকের আর্টিকেল টি মন দিয়ে সম্পূর্ণ পড়লে বিস্তারিত জানতে পারবেন আশা করি, সমাজ বিজ্ঞানের জনক হিসেবে অগাস্ট কোঁৎ (Auguste Comte) কে বিবেচনা করা হয়। ঊনবিংশ শতাব্দীর এই ফরাসি দার্শনিক, নীতিশাস্ত্রবিদ ও সমাজবিজ্ঞানী ‘পজিটিভিজম‘ নামক দর্শনের প্রবক্তা ছিলেন। অগাস্ট

মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যের শ্রেষ্ঠ নিদর্শন কোনটি

মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যের শ্রেষ্ঠ নিদর্শন কোনটি | Which is the best sign of medieval Bengali literature?

✌✌Which is the best sign of medieval Bengali literature? মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যের শ্রেষ্ঠ নিদর্শন হল, চর্যাপদ, শ্রীকৃষ্ণকীর্তন, মঙ্গলকাব্য, আলাওল, লালন ফকিরের গান।  এসব রচনা বিশেষভাবে তাদের সাহিত্যিক গুণাবলী, সাংস্কৃতিক প্রভাব এবং ঐতিহাসিক গুরুত্বের জন্য স্বীকৃত। কয়েকটি উল্লেখযোগ্য প্রার্থী: চর্যাপদ: বাংলা সাহিত্যের প্রাচীনতম নিদর্শন হিসেবে বিবেচিত, ১০ম-১২ম শতাব্দীর মধ্যে রচিত বৌদ্ধ ধর্মীয় গান। শ্রীকৃষ্ণকীর্তন: ১৫শ শতাব্দীর

বাংলা সাহিত্যের প্রথম মহিলা কবি কে

বাংলা সাহিত্যের প্রথম মহিলা কবি চন্দ্রাবতী

✌✌Who is the first female poet of Bengali literature? বাংলা সাহিত্যের প্রথম মহিলা কবি হিসেবে চন্দ্রাবতী সর্বজনস্বীকৃত। তার জীবন ও রচনা সম্পর্কে কিছু তথ্য: জন্ম: আনুমানিক ১৫৫০ সালে, কিশোরগঞ্জ জেলার পতোয়ারী গ্রামে। পিতা: বংশীদাস ভট্টাচার্য, যিনি ছিলেন একজন বিখ্যাত পণ্ডিত ও কবি। রচনা: রামায়ণ: চন্দ্রাবতীর সবচেয়ে বিখ্যাত রচনা। এটি বাংলা ভাষায় অনুবাদিত প্রথম রামায়ণ। অন্যান্য

সাহিত্য জাতির দর্পণ স্বরূপ ভাব সম্প্রসারণ

সাহিত্য জাতির দর্পণ স্বরূপ ভাব সম্প্রসারণ Literature as a mirror of nation expansion

✌✌Literature as a mirror of nation expansion সাহিত্য জাতির দর্পণ: একটি প্রসারিত বিশ্লেষণ ভূমিকা: “সাহিত্য জাতির দর্পণ” – এই সাবলীল উক্তিটি কেবল একটি রূপক নয়, বরং একটি গভীর সত্য। সাহিত্য কেবল বিনোদন বা কল্পনার জগৎ নয়, বরং এটি একটি জাতির আত্মার প্রতিফলন। এটিতে থাকে জাতির ইতিহাস, সংস্কৃতি, ঐতিহ্য, মূল্যবোধ, বিশ্বাস, আবেগ, চিন্তাভাবনা এবং লড়াই। সাহিত্য

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় কে কবে প্রতিষ্ঠা করেন

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় কে কবে প্রতিষ্ঠা করেন

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছিলেন ভারতের তৎকালীন গভর্নর জেনারেল লর্ড ক্যানিং। ১৮৫৭ সালের ২৪ জানুয়ারী তিনি “কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় আইন”-এ সই করেন, যা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা ছিল। এই আইনের আওতায়, কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় ভারতের প্রথম আধুনিক বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়টির প্রাথমিক লক্ষ্য ছিল পশ্চিমা শিক্ষা ব্যবস্থা প্রচার করা এবং ভারতীয় উপমহাদেশে উচ্চশিক্ষার মান উন্নত করা। এখন

বাংলাদেশ সম্পর্কিত ১৫০টি গুরুত্বপূর্ন সাধারণ জ্ঞান | সাধারণ জ্ঞান কুইজ

বাংলাদেশ সম্পর্কিত ১৫০টি গুরুত্বপূর্ন সাধারণ জ্ঞান | সাধারণ জ্ঞান কুইজ

সাধারণ জ্ঞান: ধারণা ও গুরুত্ব বাংলাদেশ সম্পর্কিত ১৫০টি গুরুত্বপূর্ন সাধারণ জ্ঞান, সাধারণ জ্ঞান বলতে বোঝায় বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে মৌলিক ধারণা এবং তথ্য । এটি আমাদের চারপাশের বিশ্ব সম্পর্কে সচেতন থাকতে সাহায্য করে এবং বিভিন্ন পরিস্থিতিতে সিদ্ধান্ত নিতে সহায়তা করে। সাধারণ জ্ঞান বিভিন্ন উৎস থেকে অর্জন করা সম্ভব, যেমন: শিক্ষা (স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়) বই পড়া (পত্রিকা,

বাংলা সাহিত্যের প্রথম সার্থক উপন্যাস কোনটি

বাংলা সাহিত্যের প্রথম সার্থক উপন্যাস কোনটি

বাংলা সাহিত্যের প্রথম সার্থক উপন্যাস হলো বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় রচিত “দুর্গেশনন্দিনী”। দুর্গেশনন্দিনী কত সালে প্রকাশিত হয় ১৮৬০ সালে  বিষয়বস্তু: উপন্যাসের প্রেক্ষাপট হলো উনিশ শতকের গ্রাম বাংলা। কাহিনীতে কেন্দ্রীয় চরিত্র হলো দুর্গেশনন্দিনী, যিনি একজন সুন্দরী ও সাহসী যুবতী। দুর্গেশনন্দিনীকে বিয়ে করতে চায় জমিদার কৃষ্ণকান্ত। কিন্তু দুর্গেশনন্দিনী অন্য একজন যুবক, ঈশানকে ভালোবাসে। কৃষ্ণকান্ত ঈশানকে হত্যা করার চেষ্টা করে,

৬০ টি ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর জীবনী বাংলা সাহিত্যের MCQ প্রশ্ন ও উত্তর

৬০ টি ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর জীবনী বাংলা সাহিত্যের

ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর MCQ, বাংলা গদ্যের জনক হিসেবে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর (১৮২০-১৮৯১) সর্বজনীনভাবে পরিচিত। তিনি উনিশ শতকের একজন বাঙালি লেখক, সমাজ সংস্কারক এবং শিক্ষাবিদ ছিলেন। তার “বর্ণপরিচয়”, “বোধবোধিনী”, “বেতাল পঞ্চবিংশতি”, “কথামালা”, “শকুন্তলা” ইত্যাদি গ্রন্থগুলি আধুনিক বাংলা গদ্য সাহিত্যের ভিত্তি স্থাপনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তিনি সহজ, সাবলীল এবং সাবলীল ভাষায় লেখার মাধ্যমে বাংলা গদ্যকে একটি স্বতন্ত্র সাহিত্যিক

বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের মতে সাহিত্যের উদ্দেশ্য কি

বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের মতে সাহিত্যের উদ্দেশ্য কি

মানুষের জীবনে নীতিবোধ ও ঈশ্বরভক্তি জাগ্রত করা: বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের মতে সাহিত্যের উদ্দেশ্য কি ? মানুষের মনে উন্নত চিন্তাভাবনার বীজ বপন করা: মানুষের মনে সাহস ও বীরত্বের অনুপ্রেরণা জাগানো: মানুষের মনে আনন্দ ও প্রফুল্লতা দান করা: উপসংহার: বঙ্কিমচন্দ্রের সাহিত্যের উদ্দেশ্য সম্পর্কে কিছু নির্দিষ্ট মতামত নিচে দেওয়া হল: সত্যের আলো জ্বালানো: বঙ্কিমচন্দ্র মনে করতেন যে সাহিত্য মানুষের

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জীবনী বিষয়ক কুইজ প্রশ্ন উত্তর MCQ ২৩০+

২৩০+ গুরুত্বপূর্ণ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কুইজ প্রশ্ন উত্তর

২৩০+ গুরুত্বপূর্ণ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কুইজ প্রশ্ন উত্তর গুরুত্বপূর্ণ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কুইজ প্রশ্ন উত্তর যা বিভিন্ন ভর্তি পরীক্ষা, এডমিশন, BCS চাকরিতে আসে Rabindranath Tagore mcq questions in bengali quiz ২৩০+ গুরুত্বপূর্ণ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কুইজ প্রশ্ন উত্তর গুরুত্বপূর্ণ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কুইজ প্রশ্ন উত্তর | Rabindranath Tagore mcq ১. রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পিতার নাম কি? মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর  ২.